মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারী ২০২০, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন

ঘোষনা :
  সম্পূর্ণ আইন বিষয়ক  দেশের প্রথম দৈনিক পত্রিকা   দৈনিক ইন্টারন্যাশনাল এর  পক্ষ থেকে সবাইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা   । 


চাপে নয়, নিজ ইচ্ছায় এশিয়া কাপ খেলেছে সাকিব : পাপন

চাপে নয়, নিজ ইচ্ছায় এশিয়া কাপ খেলেছে সাকিব : পাপন

ডেস্ক রিপোর্ট : আরে সাকিব তো খেলতেই চাননি। বলেছিলেন এশিয়া কাপ না খেলে বাঁ-হাতের কনিষ্ঠা আঙুলে সার্জারি করাতে; কিন্তু বিসিবি, বিশেষ করে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের অনুরোধ সিদ্ধান্ত পাল্টে এশিয়া কাপ খেলতে গেছেন এবং বিশ্রাম না নিয়ে এশিয়া কাপ খেলার কারণেই আঙুলে এতবড় ইনফেকশন। এখন সেই ইনফেকশন তার আঙুলের বারোটা বাজিয়ে দিয়েছে। অন্তত আড়াই থেকে তিন মাস খেলতে পারবেন না। তারপরও আঙুল সম্পূর্ণ ভালো হবে না। মোটকথা, ইচ্ছার বিরুদ্ধে এশিয়া কাপ খেলতে গিয়েই কঠিন ইনজুরির শিকার সাকিব। কার দোষে সাকিবের এ অবস্থা? এ দায় কি বোর্ডের, বিসিবি বিগ বস নাজমুল হাসান পাপনের? নাকি টিম ম্যানেজমেন্ট বা ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহনের?’

ভক্ত এবং সমর্থক মহলে রাজ্যের ক্ষোভ। নানা কৌতূহলী প্রশ্ন। সত্যিই কি পাপনের পিড়াপিড়িতেই এশিয়া কাপে খেলতে মাঠে নেমেছিলেন সাকিব? যার দিকে প্রশ্নর তীর; সেই বিসিবি বিগ বস নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দিলেন। নাহ; এখানে সে অর্থে কেউ দোষী নয়। কারো চাপে কিংবা অনুরোধে সাকিব এশিয়া কাপ খেলতে নামেনি। সে নিজের ইচ্ছে এবং গরজেই খেলেছে।

আজ (মঙ্গলবার) সকালে গুলশানে নিজ বাসভবনে স্থানীয় প্রচার মাধ্যমের সাথে আলাপে বিসিবি সভাপতি নিজেই এমন কথা জানিয়ে দেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাকে ও (সাকিব) বলেছে, আঙুলের জন্য আমার এই সমস্যা। আমি বলেছি, তুমি ডাক্তারের সাথে দেখা কর। এমন যদি হয়, এখন না করলেও চলবে। তুমি এটা এরপর কর। তারপর তার সঙ্গে মক্কা এবং মদীনায়ও দেখা হয়েছে। আমি বলেছি, এ ব্যাপারে (এশিয়া কাপে খেলা কিংবা আঙ্গুলে অস্ত্রোপচার) তোমার সিদ্ধান্ত। ও বলল, ফিজিও বলে দিয়েছে অসুবিধা নাই। খেললে খারাপ হতে পারে কি না। আমি বলেছি, না। এটাই শেষ কথা হয়েছে। আমি হজ করে আসছি, চার দিন পর আমি মেইল দেখলাম, সাকিব টিমের সাথে (ঢাকায়) জয়েন করবে না। ওখান (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে সে এশিয়া কাপ খেলার জন্য আসছে। তখন আমরা জানলাম সে খেলছে।’

সাকিব নাকি নিজেই বিসিবি সভাপতিকে বলেছিলেন, এশিয়া কাপ খেলতে পারবে। সেটাই পাপন বললেন মিডিয়াকে। তিনি বলেন, ‘আমাকে সে মক্কা-মদীনাতে বলেছে, ফিজিও বলেছে- এটা (এশিয়া কাপ) খেললে এটা বাড়ার কোনো সুযোগ নাই। কোনো অসুবিধা নাই। সে খেলতে পারে। তারপরও বলেছি, একজন ডাক্তার দেখাও। আমার ধারণা ছিল অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড বা যুক্তরাষ্ট্রে করতে পারে; কিন্তু আমাদের ধারণা ছিল, সার্জারি কোনো ডাক্তার করতেই বলেছে এমন নয়। এই জিনিস ছিল সাকিব, ফিজিও ও ডাক্তারের ওপর। সাকিব এশিয়া কাপের আগেই করতে চায়, সার্জারির আগে। আমি বলেছি, এশিয়া কাপে খেলা গেলে সে এর পরে করুক। আমার কথা হচ্ছে, পারলে খেলুক। অনেকেই ভাবছে, কেন বললাম। একটা কথা, সবাইকে বাদ দিয়ে রেখে দিতে পারি। কিন্তু খেলতে গেলে ব্যথা পেতে পারে। ডাক্তারের কাছ থেকে কিছু জানার আগ পর্যন্ত কিছু বলা যায় না। লাস্ট তাকে বলেছি, ডাক্তার দেখাও।’

এদিকে পাপন আরও একটি কথা বলেছেন। যার সাথে মিলে গেছে বিসিবি প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরীর বক্তব্যও। সাকিবের আঙুলের এমন করুণ অবস্থার জন্য দায়ী কে বা কারা? ফিজিও চন্দ্রমোহন কি করলেন, তিনি কি টের পাননি সাকিবের আঙুলের অবস্থা খারাপ? এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়ে দেবাশীষ চৌধুরী আগেই জাগো নিউজকে জানিয়েছিলেন, ‘আসলে কেউ দায়ী নয়। যে ব্যাকটেরিয়ার কারণে সাকিবের আঙুলে এই ইনফেকশন, আসল দায়ী ব্যাকটেরিয়া জনিত সমস্যা। যে কারণে সংক্রমণ হয়ে গেছে আঙুলে।’

আজ সাংবাদিকদের সাথে সাকিকেবর ইনফেকশন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে নাজমুল হাসান পাপনও প্রায় একই সুরে কথা বলেছেন। তার ব্যাখ্যা, ‘এশিয়া কাপ খেলতে গিয়েই এমন হয়েছে- এ রকম কিছু না।’

তার মানে পাপন বোঝাতে চেয়েছেন আসল সমস্যা হয়েছে ব্যাকটেরিয়াজনিত সংক্রমণেরর জন্য। ওই ব্যাকটেরিয়াই আঙুলে ইনফেকশনের জন্ম দিয়েছে। এশিয়া কাপ খেলার কারণেই তা হয়নি।

এই সংবাদ টি সবার সাথে শেয়ার করুন




দৈনিক ইন্টারন্যাশনাল.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  © All rights reserved © 2018 dainikinternational.com
Design & Developed BY Anamul Rasel